বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২০ মার্চ ২০১৮

প্রেস বিজ্ঞপ্তি


প্রকাশন তারিখ : 2018-03-12

বিএআরসি-তে “জাতীয় কৃষি নীতি -২০১৮ (খসড়া)” এর উপর পর্যলোচনা  কর্মশালা অনুষ্ঠিত

অদ্য ১১ মার্চ ২০১৮ রোজ রবিবার সকাল ৯.৩০ ঘটিকায় কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি)  মিলনায়তন, ফার্মগেট, ঢাকা এ  “জাতীয় কৃষি নীতি -২০১৮ (খসড়া)” এর উপর একটি  পর্যালোচনা কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। মাননীয় কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, এমপি উক্ত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় সংসদ সদস্য কৃষিবিদ ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক ও সভাপতি, অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি এবং মাননীয় সংসদ সদস্য কৃষিবিদ জনাব আব্দুল মান্নান ও সদস্য, কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ।  কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন জনাব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ্, সিনিয়র সচিব, কৃষি মন্ত্রনালয়।

মাননীয় কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, এমপি তাঁর প্রধান অতিথির বক্তব্যে দেশের কৃষি উন্নয়নে একটি যুগোপযোগী কৃষি নীতি প্রনয়ণের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে কৃষি সংশ্লিষ্ট সকল সংস্থাকে প্রণীত জাতীয় কৃষি নীতি ২০১৮ (খসড়া) এর উপর মতামত ও পরামর্শ  প্রদানের আহবান জানান। দেশের সার্বিক উন্নয়নে এবং দারিদ্র দূরীকরণে কৃষি খাতের অবদানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন যে, বর্তমান সরকারের কৃষি বান্ধব নীতির কারনে দেশ আজ খাদ্য উৎপাদনে প্রায় স্বয়ংসম্পূর্ণ। সার এর ক্ষেত্রে সরকারের ভর্তুকী প্রদানের কারনে কৃষকেরা জমিতে পরিমিত সার ব্যবহার করছে এবং এর ফলে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি আরো উল্লেখ করেন যে, কৃষি যন্ত্রপতিতেও ভর্তুকী প্রদানের কারনে  কৃষি যন্ত্রপতির ব্যবহার বাড়ছে যার ফলে ফসলের উৎপাদন ব্যয় কমছে। কর্মশালায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মাননীয় সংসদ সদস্য কৃষিবিদ ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক এবং মাননীয় সংসদ সদস্য কৃষিবিদ জনাব অব্দুুল মান্নান জাতীয় কৃষি নীতি ২০১৮ এর খসড়া প্রণয়নের জন্য কৃষি মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানান এবং নীতিমালাটিকে আরো যুগোপযোগী করার জন্য মতামতসহ পরামর্শ প্রদান করেন।  অনুষ্ঠানের সভাপতি কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জনাব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ্ তাঁর বক্তব্যে আশা প্রকাশ করেন যে, সংশ্লিষ্ট সকলের মতামতের ভিত্তিতে প্রণীত কৃষি নীতিটি আরো সমৃদ্ধ হবে।

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. মোঃ কবির ইকরামুল হক দেশের কৃষি উন্নয়নে কৃষি নীতির গুরুত্ব উল্লেখ করে স্বাগত বক্তব্য উপস্থাপন করেন। কৃষি গবেষণা ফাউন্ডেশনের (কেজিএফ) নির্বাহী পরিচালক এবং প্রাক্তন নির্বাহী চেয়ারম্যান, বিএআরসি ড. ওয়ায়েস কবীর কৃষি নীতি -২০১৮ (খসড়া) এর উপর মূল বিষয়বস্তু উপস্থাপন করেন। তিনি তাঁর উপস্থপনায় কৃষি উন্নয়নে গবেষণা, কৃষি প্রযুক্তি হস্তান্তর ও সম্প্রসারণ, কৃষি উপকরণ, খামার যান্ত্রিকীকরণ, জ্ঞান ও দক্ষতা উন্নয়ন, কৃষি বিপনণ, নিরাপদ খাদ্য ও কৃষি পন্য উৎপাদন ইত্যাদি ক্ষত্রে অগ্রাধিকার ভিত্তিক ভবিষ্যৎ করনীয় বিষয়সমূহ উল্লেখ করেন।

কর্মশালায় কৃষি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও আওতাধীন দপ্তর, সংস্থা, বিশ্ববিদ্যালয়, উন্নয়ন সহযোগী, বেসরকারি সংস্থা এবং কৃষক প্রতিনিধিসহ মোট ৩৫০ জন আমন্ত্রিত অতিথি অংশগ্রহণ করেন। উল্লেখ্য যে, জাতীয় কৃষি নীতি -২০১৩ কে যুগোপযোগী করে জাতীয় কৃষি নীতি -২০১৮ এর খসড়া প্রনীত হয়েছে। জাতীয় কৃষি নীতি -২০১৮  চূড়ান্তকরণের লক্ষ্যে কর্মশালায় খসড়া নীতিমালাটি পর্যালোচনা করা হয় এবং এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলের মতামত গ্রহণ করা হয়।

                   স্বাক্ষরিত/
            (মোঃ মুস্তাফিজুর রহমান)
             প্রধান প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা                                                                                               
       ফোন:৯১৩২৪১২/০১৭১৭-১৭১৯৮৬


Share with :
Facebook Facebook